1. almasbepary52@gmail.com : Almas Bepary : Almas Bepary
  2. musafirmostofa2@gmail.com : Nazmul Hossain : Nazmul Hossain
  3. rajkutir17@gmail.com : Abu Sayed : Abu Sayed
  4. admin@ajkalbd.news : Admin : Admin
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৪:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
বরিশালের গৌরনদী উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভা গৌরনদীতে বিয়ের দাবিতে অনশনে তিন সন্তানের জননী,পালালেন প্রেমিক। বানারীপাড়ায় মাওলাদ হোসেন সানার মোটর সাইকেল মার্কার সমর্থনে উঠান বৈঠক একজন মানবতার ফেরিওয়ালা কচুয়ার পালাখাল বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমির হোসেন মিয়াজী আর নেই মহম্মদপুরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিভিন্ন মামলায় আটক-৫ বরিশালের গৌরনদী উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত। সোনাইমুড়ীতে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের বিদায় সংবর্ধনা মহম্মদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে এ্যাডঃ আব্দুল মান্নান-ভাইস চেয়ারম্যান ঈদুল শেখ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শামীমা হাসান পলি বেসরকারি ভাবে বিজয়ী বানারীপাড়ায় উপজেলা নির্বাচনে ফুটবল মার্কা নিয়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মিনু
ব্রেকিং নিউজ:
বরিশালের গৌরনদী উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভা গৌরনদীতে বিয়ের দাবিতে অনশনে তিন সন্তানের জননী,পালালেন প্রেমিক। বানারীপাড়ায় মাওলাদ হোসেন সানার মোটর সাইকেল মার্কার সমর্থনে উঠান বৈঠক একজন মানবতার ফেরিওয়ালা কচুয়ার পালাখাল বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আমির হোসেন মিয়াজী আর নেই মহম্মদপুরে পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিভিন্ন মামলায় আটক-৫ বরিশালের গৌরনদী উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত। সোনাইমুড়ীতে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের বিদায় সংবর্ধনা মহম্মদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে এ্যাডঃ আব্দুল মান্নান-ভাইস চেয়ারম্যান ঈদুল শেখ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শামীমা হাসান পলি বেসরকারি ভাবে বিজয়ী বানারীপাড়ায় উপজেলা নির্বাচনে ফুটবল মার্কা নিয়ে জনপ্রিয়তার শীর্ষে মিনু

“টাকা কামানোর সোজা পথ”

  • প্রকাশিত : বুধবার, ১১ আগস্ট, ২০২১
  • ৬২২ বার পড়া হয়েছে

প্রত্যেক মানুষের পকেটে কম বেশী টাকা-পয়সা আছে। যে কোন ভাবে পারেন, তার পকেট থেকে টাকাটা আপনার পকেটে নিয়ে আসবেন। সাথে সাথে উক্ত টাকা আপনার হয়ে যাবে। মনে মনে বকা দিচ্ছে তাই না ভাই। নিশ্চয়ই ভাবছেন এটা করলে চোর হব। না তা করতে হবে না একটু মজা করলাম।

আপনি কি খরচ করতে জানেন। আগে খরচ করতে শিখুন পরে কামাতে পারবেন। আমি যা বলছি একটু মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

মনে করেন আপনার কাছে কোন টাকা নেই। কিন্তু আপনার জরুরী প্রয়োজনে মোবাইল রিচার্জ করা দরকার। আপনি এখন কি করবেন উত্তর ও প্রশ্ন গুলো দেখুন:

ক। আপনাকে মোবাইল/সীম কোম্পানী থেকে মিনিট পরিমাণ টাকা ধার নিতে হবে যা পরবর্তী রিচার্জ -এ পরিশোধ যোগ্য।

খ। কোন বন্ধু-বান্ধব থেকে ধার নিতে হবে। (যা পরিশোধ যোগ্য)

গ। পিতা-মাতা- ভাই-বোন থেকে সাহায্য ( যা পরিশোধ করতে হবে না।)

ঘ। চুরি-ডাকাতি করে অন্যের অর্থকড়ি হাতিয়ে নেয়া। (ঝুঁকির সম্ভাবনা)

ঙ। ভিক্ষে করা।( সম্মান হানী)

চ। রাস্তায় পড়ে থাকা টাকা কুড়িয়ে পকেটে ঢুকানো। (হীনমনা)
এবার বলুন আপনার কি এর কোনটাই করা সম্ভব। উত্তর অবশ্যই না। এবার কারো কাছ থেকে 40 টাকা ধার করে রিসার্চ করলেন।

উক্ত ঘটনার বিশ্লেষণ করলে আমরা কী পাই? আমরা দেখি যে, আপনার মোবাইলে কথা বলা অত্যন্ত জরুরী – এটার মানে হ‘ল, আপনার অর্থ ব্যয়ের একটি খাত তৈরী হয়েছে, অথচ আপনার কাছে কোন অর্থ নেই।

আপনি কী করলেন? আপনি এ ব্যয় /খরচ মিটানোর জন্য তাৎক্ষনিক ভাবতে লাগলেন এবং সবচেয়ে দ্রুত খরচ মেটানোর জন্য টাকা আয় করার কথা ভাবলেন এবং ধার করার মাধ্যমে টাকা আপনার একাউন্টে নিয়ে আসলেন। (ধার করাটাও একটি আয়- কিন্তু আপনার ঐ টাকার পরিমাণ দায় বৃদ্ধি পেল বটে, হিসাব বিজ্ঞানের ভাষায়)

তাহলে কী দঁড়ালো আপনি আগে ব্যয় -এর খাত তৈরী করলেন তারপর আয়ের কথা ভাবলেন তাই নয় কী?
টাকা আয় করার বহু পদ্ধতি আছে। সেটা আপনাকে খুঁজে বের করতে হবে।

অর্থাৎ যে পরিমাণ টাকা আপনি আপনার একাউন্টে আনতে চান (মানে আয় করতে চান) সে পরিমাণ কাজ বা সেবা আপনাকে বিক্রি করতে হবে। উক্ত কাজ বা সেবা প্রদানের মাধ্যমে বা যার প্রয়োজন সে উক্ত সমপরিমাণ কাজ বা সেবা আপনার কাছ থেকে কিনে নিবেন। এবং বিনিময় হিসাবে আপনাকে উক্ত পরিমান টাকা দেবেন।

এবার আপনি ভাবুন, আপনার নিকট কী সেবা অথবা অথবা শ্রম/কাজ আছে বিক্রি করার মত? পরিমাণের কথা বাদ দিলে অবশ্যই আপনার কাছে কিছু বিক্রয়যোগ্য সেবা/কাজ আছে (যেহেতু আপনি একজন সুস্থ্য ও সামথ্যবান ব্যক্তি) । অতএব সেটা বিক্রি করুণ। আপনার সেবা/কাজ যতটুকু দক্ষ সে হিসেবে মূল্য পাবেন। এভাবে বিক্রি করার ফলে আপনার শ্রমও একটি দক্ষ শ্রমে রূপান্তরিত হবে। তখন অনেক ক্রেতা পাবেন এবং দামও পাবেন অনেক বেশী। আপনার টাকা কামানোর পরিমাণও বাড়বে।

প্রথম, যেদিন শ্রম/সেবা বিক্রি করার জন্য প্রস্তাব দেবেন, খুবই সংকোচ লাগবে। এ সংকোচ ঝেড়ে ফেলবেন। কারণ আপনি তো কোন অন্যায় করছেন না। দু’একবার সাহস করে বলে ফেললেই দেখবেন সংকোচ কেটে যাবে। বর্তমানে যারা বেকার বা আয় করতে পারছে না, তাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল আলসামী এবং ”পাছে লোকে কিছু বলে”- এ ভাবনা। পাছে লোকে অনেক কথাই বলতে পারে, কিন্তু কেউ আপনাকে দশ পয়শা বিনে কারণে দিবে না।

সুতরাং, সকল ভয়-সংকোচ- লোকচক্ষু – এড়িয়ে সাহস সঞ্চার করে এখনই কাউকে অফার দিন । আমি নিশ্চিত- দশ জনকে শ্রম ক্রয়ের অফার দিলে – অন্তত 2/3 জন পাবেন, যারা আপনার অদক্ষ শ্রম ক্রয় করতে চায়। তাই- বিলম্ব না করে ( দামের কথা না ভেবে) এখনই শুরু করুন। আপনার পকেট ভারী হতে থাকবে। ভাবুন, কাজটা করছেন একান্তই আপনার নিজের জন্য- অন্য কারো জন্য নয়। তাই প্রয়োজনটাই আসল।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright: 2020 -2023 “দৈনিক আজকাল” রাজ কুঠির একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।
Design By Fahim Mahmud